অণুগল্প | উপলব্ধি



প্লেন ছেড়ে দিল। আস্তে আস্তে নিচের মাটি থেকে আকাশের দিকে এগিয়ে চলল। কানে তখনও বাজছে ‘রিপা, তুমি কথা দাও আমার হয়ে থাকবে! কোনদিন আমাকে ছাড়বে না’।
আমি বল্লাম, ‘আজকের রাতের এ দূরের নক্ষত্রের মতই সত্য হয়ে থাকব আমি তোমার জীবনে চিরকালের জন্য। মাঝে শুধু দু’বছর তোমার চিন্তায় কেটে যাবে দিন রাত’।

আজ দু বছর পরে সেই অনিকেত আমার সামনে দাঁড়িয়ে! ওর হাতে ছিল এক গোছা রজনীগন্ধা।
‘অনেক ভক্ত এসেছে তোমার কাছে অনেক মহার্ঘ নিয়ে। আমি এনেছি নয়নজলে আমার ব্যর্থ সাধনখানি।’ আমার দিকে এগিয়ে দিতে দিতে বলল অনিকেত।
আমি বললাম, ‘কী হয়েছে নিকেত? এ কবিতা কেন?’।
‘এ ছাড়া আমার আর কিছুই দেবার নেই, রিপ। আমি আজ রিক্ত।’- গলা যেন ধরে এল।
‘তোমার মনের মাধুর্য নিয়ে আমার হৃদয়পেয়ালা ভরিয়ে তুলেছ, নিকেত। এর চাইতে আমারও তো নেবার কিছু নেই।’

পেছনে দাঁড়িয়ে ওর সাদা বৌ ইভেট, আমাদের নীরব প্রেমের কথা সে কিছুই বুঝল না। শুধু দেখলাম তার নীল চোখে স্বচ্ছ জল টলটল করছে। এ যেন এক মহার্ঘ নির্মাণ।



সীমা ব্যানার্জ্জী-রায়



 

error: Content is protected !!